মঙ্গল হোক, তার মঙ্গল হোক

উরিস্লা – এ কোথায় এনে ফেললি রে বাপ! আবে ডেরাইভার – চোখে ন্যাবা হয়েছে? এত রাস্তা ছায়াপথ দিব্বি পেরিয়ে এলি ফিফথ গিয়ারে আর লাস্ট মাইলে ধেরিয়ে দিলি রাস্কেল? কোথায় বললাম কলকাতা যাব তা সেখানে না এনে পেড়ে ফেললি আর্জেন্টিনা তে? আর তুই কিনা মঙ্গলগ্রহের চাম্পিয়ন ড্রাইভার – “ড্রাইভ মঙ্গল ড্রাইভ” কনটেস্টএর এস এম এস বিজয়ী বীর? কে বলেছিল বাপধন ইন্টার গ্যালাক্টিক ভেহিকেল এর মিউসিক সিস্টেমে আরতি মুকুজ্জের “হারিয়ে যেতে যেতে” বাজাতে? এখন ঠেলা সামলাও! কিন্তু বস একটু যেন গন্ডগোল ঠেকছে? চারদিকে নীল সাদার সমুদ্র ঠিকই কিন্তু ওই উত্তুঙ্গ রক্তমগজ জিনিষটা মনুমেন্ট না? আর ঐতো – গুন্টারএর মর্মরীয় দুঃস্বপ্ন – ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল | তাহলে তো ঠিকই এসেছি! উরিম্মা – ওই দিকে দেখ! কি লোক জমেছে মাইরি – কি হচ্ছে রে? সেই ভাত দাও গো, ফ্যান দাও গো কেস নাকি রে আবার? কি বললি – শহীদ দিবস? আবার কে টপকালো মাইরি? ও হো – বামফ্রন্ট ক্যালানো পঞ্চত্ব প্রাপ্ত দের জন্যে কালেকটিভ ক্রন্দন – বুয়েছি| ওই যে মহিলা কচ্ছে  খেলা হাথ পা নেড়ে স্টেজের পরে উল্লাসে উনি কি সেই নাকি রে? আবে আস্তে কর না  স্লা চোদনা – এট্টু ভালো করে দেখি | কোনো কথা হবে না মাওয়া – লেজেন্ডারি লেডি | স্লা কি গলা মাইরি – মঙ্গলে তোর বৌদিও নির্ঘাত শুনতে পাচ্ছে | নামা নামা, এই এইখানেই সাইড করে নামা | উফ, দেশ বটেক এই শহর কলকাতা | মোড়ে মোড়ে যত না রোলের দোকান তার থেকে বেশি পোয়েটিক ক্যারেকটারস | চল একটু পায়ে হেঁটে এক্সপ্লোর করে আসি | ভেহিকেলটা লক করে দিস বাবা – নয়েতো ফিরে এসে দেখবি ভেতরের মালপত্তর হওয়া! দিয়েছিস? চল চল উর্ধ গগনে মাদল বেজে গেছে এইবার এই উতলা ধরনীতলটা একটু ঘুরে আসি – এতটা পথ শুদু তোর থোবড়া দেখে দেখে স্লা বোর হয়ে গেছি – একটু কোয়ালিটি সোশাল ইন্টারএকশন না করলে মনটা ভালো হবে না …

(মঙ্গলদার কলকাতা ভ্রমন কেমন হয়েছিল? উনি কার কার সঙ্গে দেখা করেছিলেন? সেখানে সঠিক কি ঘটেছিল? এর পরের অংশটা আমরা শুনব মঙ্গলদার হিডেন রেকর্ডিং ডিভাইস এর থেকে | সময় হয়েছে একটা ছোট্ট বিরতির – ফিরে আসব এখুনি | চোখ রাখুন টিভির পর্দায় – আমি কুমন আর আপনারা দেখছেন গুলবাজার পত্রিকা টি ভি য়ানিকি জিবিপি আনন্দ)

মমতা ব্যানার্জি : হু ইউ? আপনি কে? হুইচ হরিদাস? মঙ্গল গ্রহের রং লাল আমি জানি আর এও জানি যে আপনারা সিক্রেটলি মাওবাদীদের প্রতি সহানভুতিশীল | ইউ আর দা মাওবাদী? ত়া না হলে নিশ্চই সি পি এম? কে পাঠিয়েছে – গৌতম দেব? দেখে নেব সবকটাকে পঞ্চায়েত ভোটে – এই স্যাল কচুকাটা দেম | সঙ্গে ওই ক্রীতদাস মুন্সীটাকেও | আর মশাই বলুন তো – আপনি ফর এফ ডি আই না এগায়ন্স্ট , আঁ? আপনারা তো কিছুদিন আগেই আমেরিকার একটা যান কে নামতে দিয়েছেন আপনাদের দেশে | নিশ্চই সাম ডীল হাস টেকেন প্লেস – এফ ডি আই এর হয়ে তদ্বির করতে এসেছেন? শুনে রাখুন মিস্টার মঙ্গল – নো এফ ডি আই ইন বেঙ্গল (মদন, ছড়াটা টুকে রাখো তো)| টাইম মেগাজিন যতই আমায় গ্যাস খাওয়াক – আমি নড়ছি না | গ্যাস এর কথায় মনে পড়ল – আপনাদের ওখানে সাবসিডিতে বছরে কটা সিলিন্ডার দেয়?

সৌরভ গাঙ্গুলী : আপনাদের মঙ্গল প্রিমিয়ার লীগটা ঠিক কি ফর্মাট এ হয়? কোচ, কাপ্টেন, ওপেনিং ব্যাট, ওপেনিং বল – এই রকম কোনো রোল আছে আপনাদের লীগে? মালিকরা টিমের ব্যাপারে নাক গলায় ? কি বললেন – আপনাদের ফোকাস ইস অন ইয়ং প্লায়ের্স ? যত্ত ঢপের চপ – শুনুন, এই বয়েস ফয়েস টা কোনো ব্যাপারী নয় | কুড়ি ওভারের খেলা – চব্বিশটা বল করতে হবে আর গোটা দশেক স্লগামী – এইত কেস? আররে বস, জ্যোতিবাবু বেঁচে থাকলে উনিও পারতেন | যত্ত সব…(হ্যা হ্যা … সাহারাশ্রী কে বলে দে দাদা বাড়ি নেই…)

ঋতুপর্ণ ঘোষ : দেখুন আপনাকে প্রথমেই জানিয়ে রাখি যে চিত্রাঙ্গদা – ফর গডস সেক – ওয়াস ব্রট আপ লাইক আ ম্যান | এইটা আপনাকে বুঝতে হবে আধুনিক যৌনতা কেন্দ্রিক সেক্সুয়ালিটির উর্ধে উঠে – না না আপনাকে মাটি থেকে উঠে যেতে হবে না | নেমে আসুন নেমে আসুন – আমাদের সাউথ সিটি থেকে লোকজন আজকাল খুব ঝাপ দিচ্ছে | ছবিতে ফিরে আসি – “ছি ছি কুত্সিত কুরূপ সে” বলছে এক জায়গায় রবীন্দ্রনাথ – “কুরুপা” বলছে কি? বলছে না | উফ, না – যে মদন এর বরে সে সুরূপা হলো তিনি মদন মিত্র নন | আর আমি ডাইরেক্ট করব না অভিনয় করব সেইটা বলার লোক পোসেনজিত কে? আপনাদের মঙ্গলে কটা স্ক্রীনে রিলিস করেছে ছবিটা? ওখানকার কিছু পসিটিভ রিভিউ আছে যেটা আমি রি-টুইট করতে পারি?

গৌতম দেব: প্রথমেই জানতে চাই যে আপনি এই যে কুড়ি তারিখের ধর্মঘট – সেই ধর্মঘটের সময় এলেন কেন? আপনি কি বনধ বিরোধী? আপনি কি ওই মা-মাটি-ম্লেচ্ছ দের দলের লোক নাকি? এক প্রতিক্রিয়াশীল দেশ আপনাদের দূত পাঠালো আর আপনারা কোনো শ্রেণী-সংগ্রাম না করেই তাদের রেড কার্পেট পেতে দিলেন? এইটা কি মগের মুলুক না সিঙ্গুর? আমাদের দেশের এখন ঘোর বিপত্তি – লোকজন ওয়াল মার্ট এ জিনিস কিনতে চাইছে – চাষীরা মেট্রো ক্যাশ এন্ড ক্যারি কে মাল বেচতে চাইছে – হাসতে কাতুরি, ইয়ে মানে কাস্তে হাতুড়ির তলায় কেউ আসতে চায় না | এইটা চলতে পারে না – আপনাদের মডেল টা কি ? রাস্তায় বস্তা পেতে পটল বিক্রি করতে হলে লোকাল কমিটিকে কত দিতে হয় আপনাদের ওখানে?

অঞ্জন দত্ত : “টি ভির এন্টেনা বাঁচিয়ে আস্তে করে…নেমে এলো বড় বড় চোখ! অঞ্জন একজন সাদামাঠা টাকমাথা লোক” | অনেক আগে লিখেছিলাম বুঝলেন খানিকটা গৌতমদার থেকে ঝেড়ে – আজকে আপনার জন্যে একটু পাল্টে দিলাম | সেই স্ট্যানলি বোস বলল – “পাল্টে দেবার স্বপ্ন আমার এখনো গেল না” – সেই থেকে পাল্টাই| গান থেকে সিনেমায় পাল্টালাম – ওফ বাবা – রঞ্জনা করে সে কি গঞ্জনা শুনতে হলো | দুটো ব্যোমকেশ করলাম…এই একদম…ওই মানিকদার চিড়িয়াখানার থেকে অনেক বেটার, জানেন – কিন্তু এই আজকালকার পাগলু পাবলিক খেলো না | মঙ্গলে জীবনমুখীর বাজারটা কিরকম? ধরুন “হরিপদ আজ অনেক আলোকবর্ষ দূরে” বলে যদি একটা ছবি করি – চিত্রনাট্য, সঙ্গীত, পরিচালনা সব আমার – কেমন চলবে বলতে পারেন?

(চলতে থাকবেন মঙ্গল দা….যদি আপনারা আশির্বাদ করেন | আর মাওবাদী বলে গ্রেপ্তার করে যদি শিলাদিত্য বানিয়ে না দেন)

Advertisements