চাপ রাখতে শিখুন

ঠেলতে ঠেলতে ভীড় নিয়ে গিয়েছে লেডিস সীট, general সীট আর প্রতিবন্ধীর সীট এর বের্মুদা ত্রিকোণ এ | বর্ষাকালের ভ্যাপসা গরমে প্রাণ ত্রাহি ত্রাহি | কপাল থেকে নোনতা ঘামের পদ্মা মেঘনা ভোলগা সিন্ধু সব কুলকুল করে বয়ে চলেছে | চ্যাট চ্যেটে গরমে কিছুক্ষণ আগে হাথ চুলকছিল – চুলকালাম কিন্তু অনুভূতি হলো না| leprosy নাকি? দেখি পাশের লোকটি বলে উঠলেন “দাদা ভালই তো দিচ্ছিলেন, বন্ধ করলেন কেন”? আমি তো লজ্জায়ে অধোবদন| VIP road ছেড়ে উল্টো ডাঙ্গা আসতেই আর এক প্রস্থ ভীড় ঝাপিয়ে পড়ল 45A বাস টির গায়ে| পিস্টন এর চাপের মত ব্যাপার – সুনামি ও বলতে পারেন | হেলে পড়ছি পাশের লোকটির ওপর অনেকটা পদার্থবিজ্ঞানের bi metallic strip উত্তাপে যেমন বেঁকে যায়ে, তেমনি| ঠিক এমন সময়ে সেই পাশের লোকটির থেকে উচ্চারিত হলো এক অমোঘ বাণী – “দাদা, চাপ রাখতে শিখুন”

এই বিশ্বায়নের বাজারে চাপ তো বাড়বেই| হু হু করে বাড়বে| এই দেখুন না – সাধারণ আলু, যিনি আগে কখনো দামের দিক থেকে শেয়ার বাজারের সঙ্গে টক্কর দিতেন না, তিনিও ইদানিং কেমন বানরের তৈলাক্ত বামবু বেয়ে ওঠা-নামার পথ ধরেছেন| এই হলো আলুর দোষ – কাভি ইধার তো কাভি উধার| আর এই করতে গিয়ে নিতান্ত নীয়ন আলয়ে ছা-পোষা বাঙালির সকাল সন্ধে গুলিকে ইকোনমিক কষ্ঠে ভরিয়ে তুলেছে| তারপর ওই যে পাশের বাড়ির রিমঝিম এর মা এর দেখাদেখি আপনার উনি যে মারুতি রিত্জ টি কিনিয়েছেন সেইটা তো দাদা কর্পোরেশন এর জলে চলে না| শুনেছেন তো, সচিন আগে একশ তে যাবে না পেট্রল – এই চুটকিটা? শিরদাঁয়ে একটা ঠান্ডা প্রবাহ বয়ে গেছে তো? আপনি তো আবার  physics honors , তাই না? তাহলে নিশ্চই উইকিপেডিয়া তে গিয়ে WPI , CPI ইত্যাদির ডেফিনিসন গুলো দেখে নিয়েছেন? জিনিস পত্তর এর দাম কি ভাবে বেড়ে চলেছে দেখছেন তো – কিন্তু মাইনে কি বাড়ছে সেই অনুপাতে? বাড়ছে না| বাড়ছে কি? বাড়ছে চাপ| এই চাপ নিতে না পেরে যে আপনি ভাববেন এক সাংবাদিক সম্মেলনে গিয়ে কৃষি মন্ত্রীকে ঠাস-ঠাস করে চড়িয়ে আসবেন, তাহলে কিন্তু গুরু পুরো ছড়িয়ে ছাপ্পান্নো| চাপ রাখতে শিখুন|

আরে মসাই কত বড় বড় লোক এই চাপের কাছে হার স্বীকার করছে! এই যে একটু আগে বলছিলাম সচিন এর কথা – ১৯৮৯, যখন আপনি সবে সেকন্ড য়িয়ার, শ্যামলা ত্বনী সপ্তাহে দুদিন হাতাকাটা জামা আর বব  চুল কে তাক করেছেন – তখন থেকে এই সচিন ক্রিচ্কেট দুনিয়া মাতিয়ে যাচ্ছে| কত বিলাই না হয়েছে ব্যাটার সঙ্গে – ফর্মের উতার চড়াও থেকে শালা গ্রেগ চাপ্পেল এর মাতব্বরি – সব সয়েছে ওই লোকটা| নয়ে নয়ে করে একশ টা শতরান এর দোর গোড়ায়ে দাড়িয়ে আছে| নিরানব্বুই টা  হয়ে গেল দাদা, বাকি কেবল একটা| কি বললেন – জল ভাত? তা হবে হয়েতো, কিন্তু দেখুন দেখি গত ছয়ে মাস ধরে কি না করেছে কিন্তু না, সুচিত্রা সেন এর মত সেই একশ নম্বর অধরা রয়ে গেছে| মায়ে কিছুদিন আগে, আমাদের কলকাতা তে খেলতে এসে গাড়ি নিয়ে কালিঘাট মন্দিরে পেন্নাম ঠুকে এসেছিলেন এই সচিন| কিন্তু কথাযে কি? চাপ দাদা, নির্মম চাপ| কলকাতা তে তো পারলেন নাই , এমনকি ঘরের মাঠ, যেখানে উনি বাচপান থেকে রেলা নিয়ে এসেছেন, যেখানে pitch এমন বানিয়েছে যে আপনি – যিনি সেই third year এ বিবেকানন্দ পার্ক এ রিমকি কে ইমপ্রেস করতে bat ধরেছিলেন শেষবার – আপনিও শতক মেরে দিতে পারতেন| কিন্তু সচিন? নব্বুই এর ঘরে গেলেন, গুচ্ছের লোক Facebook টুক এ অগ্রিম আনন্দ করে নিল, কিন্তু শেষে ভাড়ে মা ভবানী | পারলেন না, পারলেন না – চাপ রাখতে পারলেন না|

শেষ করার আগে আবার একবার বলি – এটা দাঁত কেলিয়ে হাসার matter নয়ে – demand এবং supply , দুই দিক থেকেই কিন্তু চাপ আসছে| পৃথিবী তা জটিল হয়ে যাচ্ছে দিনকেদিন – কথাযে গ্রীস এর সরকার কত টাকা ধার করলো তার ওপর বেস করে আপনি যে ওই আপনার উনি কে লুকিয়ে ইন্টারনেট এ যা সব কেনাকাটা করেন, তার দাম গেল বেড়ে| এইটা চাপ এর supply side . আপনার ও তো বয়েস হচ্ছে রাতবিরেতে কাশি , আর কাশির দমক থামলে কিন্তু স্ত্রীর মুখ বাসি – মাসকাবারি বাজার হয়েনি, টুমকির ইশকুল এর মাইনে দিতে হবে, “কতদিন হয়ে গেল সিনেমা নিয়ে যাওনা – চল না গো Ra.One দেখে আসি” – এই হলো আপনার চলটা উঠে যাওয়া bypass এর রাস্তার মত আপনার demand side | খোখলা হয়ে আসছে| তা বলে যেন আবার মুখে গামছা জড়িয়ে, AK 47 বন্দুক নিয়ে বিপ্লব ঘটাতে বেরিয়ে পরবেন না যেন| হেলে পরবেন কিন্তু ভেঙ্গে পরবেন না – চাপ রাখতে শিখুন|

Leave a comment

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: